1. [email protected] : শেয়ারখবর : শেয়ারখবর
  2. [email protected] : Admin : Admin
  3. [email protected] : muzahid : muzahid
  4. [email protected] : nayan : nayan
বুধবার, ১৯ জুন ২০২৪, ১২:২৩ অপরাহ্ন

আইপিও আবেদনে চালু হচ্ছে নতুন নিয়ম

  • আপডেট সময় : বুধবার, ২২ সেপ্টেম্বর, ২০২১
  • ১৪৮ বার দেখা হয়েছে
IPO-

শেয়ারবাজারে তালিকাভুক্তির জন্য আইপিও (প্রাথমিক গণপ্রস্তাব) অনুমোদন পাওয়া কোম্পানি সেনা কল্যাণ ইন্স্যুরেন্স কোম্পানি লিমিটেড থেকে সাধারণ বিনিয়োগকারীরা শেয়ারের জন্য ১০ হাজার টাকার বেশি আবেদন করতে পারবেন না। এর আগে সর্বোচ্চ ৫০ হাজার টাকার আবেদন করা যেত। নতুন এই নিয়মের কারণে ৫০ হাজার টাকায় আবেদনকারীরা আরও বিও হিসাব খুলে সেখানে বিশ হাজার টাকা বিনিয়োগ করে আইপিওতে আবেদন করবেন। যার ফলে বাজারে অর্থ সরবরাহ বাড়বে। বাড়বে শেয়ারবাজারের গভীরতা।

শেয়ারবাজার নিয়ন্ত্রক সংস্থা বাংলাদেশ সিকিউরিটিজ অ্যান্ড এক্সচেঞ্জ কমিশন (বিএসইসি) সূত্রে এ তথ্য জানা গেছে।

সূত্র মতে।, বর্তমানে একজন সাধারণ বিনিয়োগকারী আইপিও শেয়ারে সর্বনিম্ন ১০ হাজার থেকে সর্বোচ্চ ৫০ হাজার টাকার শেয়ারের জন্য আবেদন করতে পারেন। ফলে আবেদনকারীদের মধ্যে আইপিও শেয়ারপ্রাপ্তিতে কমবেশি হয়। শেয়ারপ্রাপ্তির এ ব্যবধান কমিয়ে আনতে সাধারণ বিনিয়োগকারীদের জন্য আইপিওতে আবেদন ১০ হাজার টাকায় নির্দিষ্ট করে দেওয়া হচ্ছে। ফলে আবেদনকারী সব বিনিয়োগকারী আইপিওতে সমানসংখ্যক শেয়ার পাবেন।

এ প্রসঙ্গে বিএসইসির মুখপাত্র ও নির্বাহী পরিচালক মোহাম্মদ রেজাউল করিম শেয়ারনিউজকে বলেন, সাধারণ বিনিয়োগকারীরা যাতে আইপিওতে বেশি শেয়ার পান, সে জন্য নতুন বিধান করা হয়েছে। ফলে কেউ চাইলে বেশি টাকার আবেদন করতে পারবেন না, বেশি শেয়ারও পাবেন না। নতুন এ শর্ত কোম্পানিগুলোর আইপিওর সম্মতিপত্রে উল্লেখ করে দেওয়া হবে। এরই মধ্যে সেনাকল্যাণ ইনস্যুরেন্স কোম্পানির আইপিওর সম্মতিপত্রে এ শর্ত যুক্ত করে দেওয়া হয়েছে।

তিনি আরও বলেন, লটারী বাদ দিয়ে আইপিওর নতুন এই সিস্টেমের কারেণে এখন পর্যন্ত বাজারে ২ হাজার কোটি টাকা প্রবেশ করেছে। এখন আবারও ৫০ হাজার টাকার আইপিও আবেদন বাতিলের ফলে নতুন বিওর সংখ্যা বাড়বে। এতে করে প্রতি বিওতে ২০ হাজার টাকা করে ইনভেস্ট করলে বাজারে অনেক অর্থের জোগান হবে। এতে করে বাজার আরও বেশি শক্তিশালী হবে।

মোহাম্মদ রেজাউল করিম আরও বলেন, একই সাথে বিনিয়োগকারীরা ১০ হাজার টাকার আবেদন করে যে শেয়ার পেতেন, তার ৫ গুণ বেশি শেয়ার পেতেন ৫০ হাজার টাকার আবেদনকারীরা। এখন এই পার্থক্য কমে গেছে। এতে করে ১০ হাজার টাকায় আইপিও আবেদনকারীরা এখন আগের তুলোনায় আরও বেশি শেয়ার পাবেন।

শেয়ার বেশি পেলে আইপিওতে আবেদনও বেশি বাড়বে। আর আইপিওতে আবেদন বাড়াতে হলে বিও বাড়াতে হবে। আর বিও বাড়লে প্রতি বিওতে ২০ হাজার টাকা করে ইনভেস্ট থাকবে। এই ইনভেস্ট মার্কেটকে অনেক বেশি শক্তিশালী করবে বলে জানান বিএসইসির মূখপাত্র মোহাম্মদ রেজাউল করিম।

আগামী ৩ অক্টোবর থেকে সেনাকল্যাণ ইনস্যুরেন্সের আইপিওর চাঁদা গ্রহণ শুরু হবে। আর এরই মাধ্যমে আইপিওতে নতুন মাত্রা যুক্ত হবে। কোম্পানিটির প্রতিটি শেয়ার ১০ টাকা অভিহিত মূল্য বা ফেসভ্যালুতে বিক্রি হবে। কোম্পানিটি এক কোটি ৬০ লাখ শেয়ার ছেড়ে বাজার থেকে ১৬ কোটি টাকা সংগ্রহ করবে।

শেয়ার দিয়ে সবাইকে দেখার সুযোগ করে দিন

এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ